সংবাদ শিরোনামঃ

আমি আনেক বার নড়াইল শহরের সিটি সার্ভিস কেন বন্ধ এর বিরুদ্ধে লিখেছি কোন পদক্ষেপ নিতে দেখি না কেন

মো গোলাম কিবরিয়া নড়াইল।

মো সৈয়দ খায়রুল আলম বলেন, সড়ক নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে দির্ঘদিন ধরে আমার বেশকিছু সাজেশন ও প্রতিবাদ ছিল। কিন্তু বাস্তবায়ন হয় না। শহরে বাস বন্ধের আগে মিটিংয়ে বিষয়টি উপস্থাপন করেছি। তখন কথা ছিল মালিবাগ পর্যন্ত বাসভাড়া লোহাগড়া এবং কালিয়া থেকে পাঁচ টাকা কমবে আর মালিবাগ থেকে শেখ রাসেল সেতুর পশ্চিম পাড়ে ইজিবাইকে ভাড়া হবে পাঁচ টাকা। কিন্তু এ বিষয়টি নিয়ে পৌরসভা বা জেলা পুলিশ বা জেলা প্রশাসন কোন নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে পারে নাই। তাই এখন দেখা যাচ্ছে লোহাগড়া উপজেলা এবং কালিয়া উপজেলার সাধারণ মানুষ এবং ছাত্র ছাত্রীদের নড়াইল শহরে আশা ব্যায়বহুল হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে নিরাসন করা খুবই জরুরী। নড়াইল শহরের মানুষ শহরের রাস্তা বড় করার দাবি না করে সিটি সার্ভিস গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া পক্ষ অবস্থান আর প্রস্থ সড়ক নির্মাণে বাধা এরই মধ্যে আটকে আছে নড়াইলের উন্নয়ন। যে শহরের আইন শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যরা শুধু শহরের নিরাপত্তা নিয়ে সচেতনতা দেখান, অথচ তারা কিন্তু পুরো জেলার আইন শৃঙ্খলা যোগাযোগ পরিস্থিতি দেখার দায়িত্ব বলে মনে করি। আশাকরি শীঘ্রই এই বিষয়টি সুরাহা করতে দায়িত্বশীলরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন। নিরাপদ সড়ক ও রেলপথ বাস্তবায়ন পরিষদ এর সভাপতি হিসেবে দির্ঘদিন ধরে এ দাবিতে কথা বলে আসছি। তবে দুঃখজনক হলেও সত্য সড়ক নিরাপত্তা কমিটির কোন মিটিং ও তেমন হয় না। আরটিসি বা রিজিওনাল ট্রাফিক সিস্টেম এবং জেলা সড়ক নিরাপত্তা কমিটির সভা নিয়মিত হলে এ ধরনের সমস্যার সমাধান হতে পারে। এ বিষয়ে লোহাগড়া উপজেলা এবং কালিয়া উপজেলার সুশীল সমাজ ও গণমাধ্যম কর্মীদের একটু ভুমিকা পালন করতে এগিয়ে আসতে হবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*