সংবাদ শিরোনামঃ

তরফপুর ইউনিয়নে কৃষকের উপর এসিড নিক্ষেপের অভিযোগে মামলা।

জাকির হোসেন ,মির্জাপুর উপজেলা প্রতিনিধি।

পাওনা টাকা চাওয়ায় ও পারিবারিক বিরোধের জের ধরে এক কৃষকের উপর এসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।ন্যায় বিচার চেয়ে ঐই কৃষক তিনজন কে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় তরফপুর ইউনিয়নে ছিটমামুদ পুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে।এসিড নিক্ষেপের শিকার কৃষকের নাম মোঃ নুরুল ইসলাম(৫৩),পিতার নাম কেরুম উদ্দিন,তাদের বাড়ি ছিটমামুদ পুর গ্রামে।গতকাল মঙ্গলবার তিনি অভিযোগ করেন,একই গ্রামর সহিদের ছেলে কাজিম উদ্দিন(৫৩),তার স্ত্রী নাছিমা বেগম (৪৫),লাবলু(৪৫),এমারত মিয় (৪৮),এবং নাজিম উদ্দিন (৪৫) নিকট ৬০ হাজার টাকা ধার দেন।ধারের টাকা চাওয়ায় তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক ভাবে বিরোধ চলে আসছে। এই বিষয়টি নিয়ে একাদিক বার গ্রাম সালিশ ও হয়েছে বলে জানা যায়। গত বৃহস্পতিবার ২৯ শে জুলাই তাদের বাড়িতো টাকা চাইতে গেলে তারা সংঘবদ্ধ ভাবে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। গত শুক্রবার ৩০শে জুলাই রাতে দূর্বৃত্তরা তার বাড়িতে ঢুকে জানালা দিয়ে তার শরীরে এসিড নিক্ষেপ করলে তার শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে যায়।।এ সময় তার চিৎকার করলে আশে পাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে জামুর্কি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।শরীলের বিভিন্ন অংশ পুড়ে যাওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে রেফার করেছে।অর্থের অভাবে তিনি ঢাকায় যেতে পারছেন না বলে অভিযোগ করেন।গত সোমবার কাজিম উদ্দিন,তার্ স্ত্রী নাছিমা বেগম ও নাজিম উদ্দিন কে আসামী করে মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।তিনি অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কাজিম উদ্দিন ও নাজিম উদ্দিনের সাথে কথা হলে তারা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,নুর ইসলামের সাথে তাদের কোন বিরোধ নেই।তার কাছে আমরা ৬০ হাজার টাকা পাওনা আছি।এ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় মেম্বার,গ্রামের মাতাব্বর গণ একাধিকবার সালিশ ও করেছে।৬০ হাজার টাকা না দেওয়ায় ইতিপূর্বে তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে।তারা আরো বলেন,আমাদের ফাসানোর জন্য এসিড নিক্ষেপের নাটক সাজিয়েছেন। তারা সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন। অত্র গ্রামের বাসিন্দা, ছিট মামুদ পুর উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, ইউপি সদস্য, এবং তরফপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন,নুর ইসলাম ও কাজিম উদ্দিন গংদের মধ্যে নারী সংক্রান্ত বিষয় ও টাকার লেনদেন নিয়ে বিরোধ রয়েছে।এ নিয়ে একাদিকবার মীমাংশার জন্য সালিশ হয়েছে।তবে নুর ইসলাম যে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। এলাকার নিরীহ লোকজনদের ফাঁসানোর জন্য নিজেই তার শরীরে ব্যাটারীর পানি ঠেলে এসিড নিক্ষেপের নাটক সাজিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে এলাকায় অনেক অভিযোগ রয়েছে।এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ডিউটি অফিসার মোঃ আরিফুল ইসলাম বলেন,নূর ইসলাম তিনজন কে আসামি করে এসিড নিক্ষেপের একটি অভিযোগ থানায় দিয়েছেন।তার শরীরে এসিড নিক্ষেপ করা হয়েছে কিনা সন্দেহ রয়েছে।অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*