সংবাদ শিরোনামঃ

সালমান এফ রহমান পুঁজিবাজারের ভবিষ্যত ভালো দেখছেন ।

গত এক বছর ধরে পুঁজিবাজারে নতুন ধরণ দেখা যাচ্ছে। নতুন কমিশন অনেকগুলো ভালো পদক্ষেপ নিয়েছে। এখানে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরেছে। এছাড়া লেনদেন ও বাজার মূলধন বেড়েছে। একইসঙ্গে বেসিক সমস্যা ইক্যুইটি ভিত্তিক মার্কেট থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে আমাদের পুঁজিবাজারের ভবিষ্যত ভালো দেখছি।’
পুঁজিবাজারের বর্তমান অবস্থায় সন্তোষ প্রকাশ করে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।
শনিবার (১৯ জুন) বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশন (বিএমবিএ) ও ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্টস ফোরাম (সিএমজেএফ) আয়োজিত ‘বাজেট পরবর্তী আলোচনা ও পুঁজিবাজারের উন্নয়নের পথ’ শীর্ষক অনলাইন সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, কমিশনার ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান মো. ইউনুসুর রহমান ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম।
এছাড়া আলোচক হিসেবে ছিলেন ডিএসই ব্রোকার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ডিবিএ) সভাপতি শরিফ আনোয়ার হোসাইন ও এএমসি এসোসিয়েশনের সভাপতি ড. হাসান ইমাম।
প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প বিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, শেয়ারবাজার ভালো হওয়ার সাথে সাথে স্টেকহোল্ডারদের দায়িত্ব বাড়বে। এক্ষেত্রে দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। এছাড়া বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর পুঁজিবাজার যেভাবে পরিচালিত হয় এবং সেখানে যে ধরনের সুযোগ-সুবিধা আছে, সেগুলো চালু করতে হবে।
সালমান এফ রহমান বলেন, আলোচনায় চূড়ান্ত বাজেটে তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির করহার ব্যবধান বাড়ানো, লভ্যাংশে দ্বৈত করহার প্রত্যাহার, মার্চেন্ট ব্যাংকের করহার কমানো, অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের সুযোগসহ যেসব প্রস্তাব করা হয়েছে- সেগুলোর পেছনে যুক্তি আছে। এই প্রস্তাবগুলো চূড়ান্ত বাজেটে অন্তর্ভূক্ত করার চেষ্টা করা হবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*