সংবাদ শিরোনামঃ

ভোটার তালিকায় ছারছিনা পীরের নাম নেই!

ছারছিনা পীরের নাম নেই ভোটার তালিকায়!দক্ষিণ বঙ্গের লাখো লাখো ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের তীর্থ স্থান হিসেবে পরিচিত পিরোজপুরের ছারছিনা দরবার শরিফ।মরহুম বড় পীর নেছার উদ্দিনের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের ছারছিনা দরবার শরিফ।

বড় পীরের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তৎকালিন স্বৈর শাষক এরশাদ স্বরূপকাঠি উপজেলার নাম পরিবর্তন করে নেছারাবাদ রাখেন। ওই সময় নাম পরিবর্তনের বিরুদ্ধে প্রগতিশীলরা একাট্টা হলেও পরবর্তীতে বড় পীর নেছার উদ্দিনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তারাও রনে ভঙ্গ দেন।নেছার উদ্দিনের পূন্য ভূমিতে এখন পীরের দায়িত্ব পালন করছেন তারই নাতী মো. মহিবুল্লাহ। লাখ লাখ অনুসারির এ পীরের নাম বর্তমান ভোটার তালিকায় না থাকায় জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এমনকি খোদ নির্বাচন কমিশনই এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।
জনমনের প্রশ্নের উত্তর খুজতে গিয়ে এ প্রতিনিধি জানতে পারেন, ২০০৮ সালের অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠি পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় ১০৬ নম্বরে রয়েছে ছারছিনার বর্তমান পীর শাহ মো. মহিবুল্লাহ’র নাম। সেখানে তার পেশা কৃষক উল্লেখ রয়েছে। জন্ম তারিখ দেয়া আছে ২ জুলাই ১৯৫১।

এদিকে ২০১৩ সালের ভোটার তালিকায় তার ভোটার নম্বর ১০০। সেখানেও পীরের পেশা কৃষক উল্লেখ থাকলেও জন্ম তারিখ দেয়া আছে ১ মার্চ ১৯৬০। তবে ২০১৮ ইং সালের পৌরসভার ভোটার তালিকায় পীর শাহ মো. মহিবুল্লার নামই খুজে পাওয়া যায়নি।স্বরূপকাঠি নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, পীর সাহেবের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর অনুসারে তার ভোটার সিরিয়াল নম্বর ৮৬।

কিন্ত ৮ নং ওয়ার্ডের বর্তমান তালিকায় ৪৫৮ জন পুরুষ ভোটারের ৮৬ নম্বরে ডুপ্লিকেট লেখা থাকলেও তালিকার কোথাও পীরের নাম লেখা নেই।এ বিষয়ে স্বরূপকাঠি উপজেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুর রউফ বলেন, এমন একটা ঘটনা কিভাবে ঘটলো সেটা আমার বোধগম্য হচ্ছেনা। পীর সাহেবের মতো সনামধন্য ব্যক্তির নাম ভোটার তালিকায় না থাকাটা প্রকৃতই হতাশার।তবে যত দ্রæত সম্ভব এ সমস্যার সমাধান করা হবে বলেও তিনি জানান।স্বরূপকাঠি পৌরসভা মেয়র জি এম কবির মুঠোফোনে বলেন, আমি এ বিষয়টি জানিনা।আজই জানলাম। তবে খোঁজ নিয়ে দেখবো।এ ব্যাপারে জানতে ছারছিনা দরবার শরিফের পীর মো. মহিবুল্লাহ’র ব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*