সংবাদ শিরোনামঃ

হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থার “জনকল্যাণ ফান্ড” ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় প্রায় ৬৫ হাজার টাকার বাজেট নিয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজে মানবতার কল্যাণে এগিয়ে এসেছে হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থাঃ

এস এম ওমর ফারুক চন্দনাইশ প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার চন্দনাইশ থানার সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের একটি প্রত্যন্ত গ্রাম হাজিরপাড়া। বর্তমানে দেশে উন্নয়নের জোয়ারে অবকাঠামোগত উন্নয়ন সাধিত হলেও হাজিরপাড়া লোকজন এই উন্নয়নের ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত। বর্তমানে এই এলাকার রাস্তাঘাটের অবস্থা খুবই নাজুক হয়ে পড়েছে। সরকারি অনুদান না পাওয়ায় ৯ বছর আগে হাজির পাড়া এলাকার স্বনামধন্য ব্যক্তি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ সওদাগর পরিবারের ব্যক্তিগত উদ্যোগে আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ সওদাগর সড়কটি নির্মাণ করেন। পরবর্তীতে চন্দনাইশ উপজেলার সম্মানিত চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরী ২০১৪ সালে রাস্তাটি পুনঃনির্মাণ করেন। কিন্তু সংস্কারের অভাবে রাস্তার বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। বর্তমানে এই রাস্তা দিয়ে হাজির পাড়া এলাকার লোকজন ও গাড়ি চলাচলের অসুবিধা হয়ে পড়েছে।ভোগান্তিতে পড়েছে স্কুল – মাদরাসা শিক্ষার্থীরা ।এই রাস্তা দিয়ে গাড়ি চলাচলের সময় বেশ কয়েকবার গাড়ি উল্টে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে। আর বর্ষা কালে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে চলাফেরা করার অনুপযুক্ত হয়ে পড়ে। রাস্তার এই বেহাল দশা আর এলাকার লোকের করুণ অবস্থা দেখে এগিয়ে এসেছে হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থা নামের অরাজনৈতিক,সামাজিক ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন। হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থার “জনকল্যাণ ফান্ড” ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় প্রায় ৬৫ হাজার টাকার বাজেট নিয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজে মানবতার কল্যাণে এগিয়ে এসেছে হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থা। সংগঠনের জন্ম আজ থেকে ১৭ বছর পূর্বে ২০০৪ সালে হাজির পাড়া ক্রীড়া সংস্থা নামে শুরু হলেও নতুন করে এলাকার যুবক ছেলেদের একত্রিত করে হাজির পাড়া এলাকার উন্নয়ন হাজির পাড়াকে একটি মডেল গ্রাম এবং আগামী প্রজন্মকে একটি সুন্দর আদর্শ হাজির পাড়া উপহার দেওয়ার লক্ষ্যে, ২০২০ সালের মে মাসে সংগঠনের পুন:নামকরণ ও নতুন সদস্য সংগ্রহ করে সংগঠনের নাম দেওয়া হয় হাজিরপাড়া যুব কল্যাণ সংস্থা। বর্তমানে সংগঠনের সদস্য হিসেবে আছে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, শিক্ষক ,বিসিএস ক্যাডার, ব্যাংকার, ব্যবসায়ী,ছাত্র ও চাকরিজীবীসহ প্রায় ৬০ জন সদস্য। হাজির পাড়া এলাকায় প্রতিটি ঘরে ঘরে নলকূপ থাকলেও পানি খাওয়ার অনুপযোগী হওয়ায় সংগঠনটি তাদের কার্যক্রম হিসেবে চলতি বছরের মে মাসে এলাকার বড় পুকুরের পশ্চিম পাড় সংলগ্ন সুপেয় পানির সরকারি নলকূপটি সংস্কার করেছে যাতে করে” এলাকার মহিলারা সহজে খাবার পানি সংগ্রহ করতে পারে। সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পদক আরো জানান, মানবতার কল্যাণ সাধন করাই তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য।তাদের সামনে তাদের এলাকার উন্নয়নের জন্য কয়েকটি বড় ধরনের পরিকল্পনা রয়েছে যা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে ইনশাআল্লাহ। সংস্থার উন্নয়ন মূলক অগ্রগতি দেখে সাতবাড়িয়ার কৃতি সন্তান, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক প্রফেসর আবদুল আলিম বলেন, হাজির পাড়া যুব কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে, আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ সড়কের সংস্কার কাজে,সংস্থার সদস্যরা নিজস্ব স্বেচ্ছাশ্রমে এবং এলাকার কিছু বিত্তবান লোকের আর্থিক সহযোগিতায়, ইউনুছ সড়কের যে সংস্কারমুলক কাজ করতেছে, এজন্য আমি সংস্থার সকল সদস্যকে, আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।ভবিষ্যতেও তারা এ ধরনের সমাজ সংস্কারমুলক কাজ ও এলাকায় উন্নয়নমুলক অবদান রাখবে এটা আমরা আশা করি। এই উন্নয়নমুলক কাজের জন্য তাদের যা যা সহযোগিতার প্রয়োজন, আমরা তা তা দেওয়ার জন্য প্রতিশ্রুতি প্রদান করছি। এবং সংস্থার সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*