সংবাদ শিরোনামঃ

নেদারল্যান্ডসের হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে নির্যাতনের বর্ননা দিতে যাওয়া তিন রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ফেরত।


মাহবুব আলম মিনার

নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের শুনানিতে মায়ানমারের করা গনহত্যা ও ধর্ষণের বর্ননা দিতে ৭ ডিসেম্বর বাংলাদেশ রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ৩ জন রোহিঙ্গা আন্তর্জাতিক ভাবে যোগদান করেন। ঐ রোহিঙ্গারা তাদের উপর করা মায়ানমারের নির্যাতনের বর্ননা তুলে ধরেন আদালতে। আদালতের শুনানি শেষে শনিবার বিকালে উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিজ কুড়ে ঘরে ফিরে এসেছেন বলে জানা যায়। ৪ নং ক্যাম্পের মাঝি বশি উল্লাহর কাছে জান্তে চায়লে, তিনি জানান ১ পুরুষ ২ নারী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আন্তর্জাতিক ভাবে অপরাধ আদালতে উপস্থিত হয়ে তাদের উপর করা মায়ানমারের নির্যাতনের কথা নেদারল্যান্ডস হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে তুলে ধরেছেন বলে জানান। অপরাধ আদালতে উপস্থিত হওয়ার পর অং সান সুচির মিথ্যা বক্তব্য নিয়ে দুঃখ ও প্রকাশ করেন তারা। মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন আমাদের উপর মায়ানমার কিভাবে নির্যাতন করেছে তা বিশ্ববাসী জানে। যদি বাংলাদেশ সরকার আমাদের আশ্রয় না দিতেন আমরা নাফ নদীতে ভেসে মরতাম। আজ বাংলাদেশের আশ্রয়ে আমরা রয়েছি এবং হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে নির্যাতনের বর্ননা দিতে পেরেছি,এই বলে বাংলাদেশের প্রতি শুকরিয়াও জানান তারা।রোহিঙ্গাদের আশা তারা বিচার পেয়ে নিজ মাতৃভূমি তে ফিরিয়ে যেতে পারবে একদিন। রোহিঙ্গা সলিমুল্লাহ বলেন, আমরা বিটে মাটি সব কিছু হারিয়েছি এই মায়ানমার সরকারের মিলিটারি বাহিনীর নির্যাতনে,মিলিটারির গুলিতে আমাদের হাজার হাজার মা-বোনেরা প্রাণ হারিয়েছে,ধর্ষণের শিকার হয়েছে, তাই আল্লাহ আমাদের দোয়া কবুল করে আজ গাম্বিয়া সরকারের সহযোগিতা মিলেছে। আমরা বিচার পেয়ে নিজ মাতৃভূমি তে ফিরিয়ে যেতে আগ্রহী বলে জানান। আদালতে শুনানি শেষে ফিরে আসা রোহিঙ্গারা হল

১. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, পিতা- মৃত কাসিম, ক্যাম্প-১ ইস্ট, ব্লক- এফ,
২. মোছাম্মৎ হামিদা খাতুন, পিতা-মৃত মোহাম্মদ করিম, স্বামী- মোহাম্মদ ছালাম, ক্যাম্প- ৪, ব্লক- সি-১৮,
৩. মোছাম্মৎ হাসিনা বেগম,পিতা- করিম উল্লাহ, মাতা- সাজিদা, ক্যাম্প-১৩ বলে জানাগেছে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*