সংবাদ শিরোনামঃ

ঠাকুরগাঁওয়ে যুবলীগ নেতার অপকর্মের বিচার চেয়ে এলাকাবাসির মানববন্ধন !


ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ঠাকুরগাঁও পৌর শাখার যুগ্ম আহব্বায়ক মো: সোহেল রানার লুচ্ছামি ও অপকর্মের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসি। রবিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুর দুইটায় শহরের প্রাণকেন্দ্র চৌরাস্তায় ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করে ঠাকুরগাঁও জেলা শিল্পকলা একাডেমি সংলগ্ন এলাকাবাসি। মানববন্ধনকালে তারা পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহŸায়ক সোহেল রানা’র নানা অপকর্মের কথা তুলে ধরে তার শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেন। এসময় বক্তারা বলেন, ঠাকুরগাঁও শহরের জেলা শিল্পকলা একাডেমির সম্মুখে ডিসি বস্তির বাসিন্দা মৃত তসলিম উদ্দিনের ছেলে ঠাকুরগাঁও পৌর যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা সোহেল রানা ওরফে ল্যাংরা সোহেল দীর্ঘদিন যাবত এলাকার নারীদের উত্যক্ত করে আসছে। গত ২৮ অক্টোবর দিবাগত রাত একটার দিকে একই এলাকার এক বিধবা নারীর ঘরে অনুমতি ছাড়াই প্রবেশ করে। এসময় সেই নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে সে। তার চিৎকারে শুনে স্থানীরা এগিয়ে এসে সোহেল রানাকে গণপিটুনি দিয়ে আটক করে রাখে। পরে রাত দুইটার দিকে সোহেলের বড় ভাই আজম এসে সকালে সুষ্ঠু বিচার করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সোহেলকে নিয়ে যায়।কিন্তু আজ পর্যন্ত এর কোন বিচার পায়নি এলাকাবাসি। এছাড়াও থানায় একটি ধর্ষণ চেষ্টা মামলা করা হলেও আজঅবদি পুলিশ আসামীকে গ্রেফতার করছে না।পুলিশ কেন আসামীকে গ্রেফতার করছে না তা আমাদের জানা নেই। আমরা আসামীকে দ্রæত গ্রেফতারসহ এর উপযুক্ত শাস্তি চাই, তা না হলে পরবর্তীতে আমরা আরও বড় আন্দোলন করবো। এ বিষয়ে জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক দেবাশীষ দত্ত সমীর জানান, দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কোন নেতাকর্মী যদি অনৈতিক কাজের সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যুবলীগ নেতা সোহেলের বিরুদ্ধে বিধবা নারীকে ধর্ষণ চেষ্টার একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে তা তদন্ত করতে জেলা যুবলীগ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। তদন্ত কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিলেই আমরা এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান (পিপিএম-সেবা) বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*