সংবাদ শিরোনামঃ

ফটিকছড়িতে ৩ সন্তানের জনকের লাশ উদ্ধার

এম. শাহনেওয়াজ নাজিম, ফটিকছড়ি প্রতিনিধি:

ফটিকছড়িতে মাহবুবুল আলম (৫০) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুর ২ টার দিকে উপজেলার নাজিরহাট পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের ইমামনগর গ্রামের নেজামুল আলীর বাড়ী থেকে পুলিশ এ লাশ উদ্ধার করে। নিহত মাহবুবুল আলম ওই এলাকার শামসুল আলমের পুত্র। নিহতের পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, ‘স্ত্রী-সন্তান বাড়ীতে না থাকায় সোমবার রাতে এশার নামাজ শেষ করে শোবার ঘরে একা ঘুমিয়ে পরে মাহবুবুল আলম। সকালে ঘুম থেকে জাগতে না দেখে পরিবারের লোকজন দরজায় ধাক্কা দেয়। কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে এক পর্যায়ে তারা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) দেলোয়ার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ খবর পেয়ে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছি। নিহত মাহবুবুল অালম এক বছর যাবৎ মানসিকভাবে অসুস্থ রয়েছেন। চিকিৎসা পত্র দেখে তা নিশ্চিত হওয়া গেছে। খবর পেয়েছি, তাদের চাউলের দোকানে ভাড়া বাড়ানো ও সেলামি নিয়ে জমিদারের সাথে ঝামেলা চলছে। ধারণা করা হচ্ছে, মানসিক অসুস্থতা, দোকানের ঝামেলা ও অার্থিক টানাপোড়েন সইতে না পেরে তিনি রাতের যেকোন সময় গলায় ফাঁস লাগিয়ে অাত্মহত্যা করে থাকতে পারে। তিনি অারো বলেন, নিহতের শরীরে অাঘাতের কোন চিহ্ন নেই। তার পরিবারেরও কোন অভিযোগ না থাকায় পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।’ নিহত মাহবুবুল অালম নাজিরহাট বাজারে চাউলের ব্যবসা করতেন বলে জানা গেছে। তার ১ ছেলে ও ২ কন্যা সন্তানের রয়েছে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*