সংবাদ শিরোনামঃ

“সাংবাদিকথা চলে কলমে অর্থে নয়” কাজী মারুফ

কাইয়ুম মাহমুদ, জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ:

প্রতিটি শিশু সমাজে নিস্পাপ হয়ে জন্মগ্রহণ করে।আর মানুষের কাছে পরিচিতি লাভ করে তার নিজ কর্মের মাধ্যমে। আর সেই সকল ভালো কর্মের মধ্যে অন্যতম একটি কর্ম হচ্ছে সাংবাদিকথা।সমাজের চোখে এ যেন এক মহান পেশা।সমাজের বাস্তব চিত্র তুলে ধরতে এ পেশার লোকজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।তা দেশ ও জনগণের জন্য কল্যাণকর।এ পেশায় আছে প্রচুর সফলতা আবার আছে অল্প কিছু ব্যার্থতা।ব্যার্থতার চেয়ে সফলতাই যেন অনেক গুনে বেশি। সফলতা এমনি এমনি আসে না।এর সফলতার জন্য দরকার হয় প্রবল ইচ্ছা শক্তি, পরিশ্রম, বুদ্ধিমত্তা ও সাহসিকতা। সাংবাদিকদের প্রতিটি পদক্ষেপে বিপদ যেন হাতছানি দিয়ে থাকে।কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ভালো কিছু তুলে ধরলে বাহবার কমতি থাকে না।

আবার অনিয়ম তুলে ধরলে প্রাণের ওপর হুমকি আসে সমান তালে।তারপরেও একজন সাংবাদিক তার ন্যায়নীতি থেকে পিছনে ফিরে তাকায় না। সাংবাদিকতায় বিভিন্ন প্রকার সমস্যা আছে অর্থাৎ এই পেশা পরিচালনা করতে গেলে নানান রকম সমস্যায় পড়তে হয়।আমি মনে করি যে সমস্যাগুলো সমাধান না করলেই নয়।সমস্যা গুলো হচ্ছে অর্থের অভাব, যানবাহনের অভাব, নিরাপত্তার অভাব, অর্থের অভাব, অর্থ বিনিময়ের একটি অন্যতম মাধ্যম। যার দ্বারা আপনি নিত্য প্রয়োজনীয় সবকিছু বিনিময় করতে পারবেন।সাংবাদিকদের যে পরিমাণে অর্থ সস্মান দেওয়া হয় তা দিয়ে তাদের কিছুই হয় না।বলতে গেলে এক সপ্তাহের চায়ের বিলও হয় না।ফলে তাদের নানান রকমের সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়।অনেক সময় বিভিন্ন প্রকার অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে। ফলে সাংবাদিকথা ও পেশার সুনাম নষ্ট হয়।তাই সাংবাদিকদের অর্থ সস্মান বৃদ্ধি করলে প্রতিষ্ঠান ও মহান পেশা সঠিকভাবে টিকে থাকবে।  যানবাহনের অভাবঃ সংবাদ সংগ্রহের জন্য সাংবাদিকদের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন স্হানে যেতে হয়।রোদ বৃষ্টি -ঝড়ে কিংবা কঠিন গোলযোগে, সাংবাদিকদের জীবন বাজি রেখে সংবাদ সংগ্রহ করতে হয়।আর এই সংবাদ সংগ্রহের জন্য এক স্হান হতে অন্য স্হানে ছুটে চলতে হয়।এই ছুটে চলার জন্য দরকার হয় যানবাহন। সাংবাদিকদের যানবাহন পর্যাপ্ত নেই ফলে সংবাদ সংগ্রহে বিলম্ব ঘটে।তাই তাদের আধুনিক যানবাহনে গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা ব্যাপক।  নিরাপত্তার অভাবঃনিরাপওা প্রতিটি ব্যাক্তির জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।জীবন যদি না থাকে পেশা দিয়ে কি হবে।তারপরেও সাংবাদিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তথ্য সংগ্রহ করে থাকে।আমাদের দেশের আইন শৃঙ্খলা আগের চেয়ে অনেক ভালো হলেও সল্প লোকজন নিয়ে কভার করা সম্ভব হয় না।সতেরো শত লোকোর জন্য একজন পুলিশ। তাহলে আপনারাই বলেন কিভাবে সবাইকে সমানভাবে দেখে রাখা সম্ভব। সাংবাদিকদের পর্যাপ্ত পরিমান বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট,টর্চলাইট,উন্নতমানের ক্যামেরা যাতে দুর থেকে ছবি সংগ্রহ করতে পারে।ফলে তাদের ঝুঁকি অনেকটা কমে যাবে।রাতে তথ্য সংগ্রহের জন্য একা কোথাও না যাওয়া। কলমে আছে সেই শক্তি অপরাধীর অপরাধ তুলে ধরবে সর্বপরী। তবেই হবে অপরাধ বন্ধ, নিভে যাবে সকল অপকর্মে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*