সংবাদ শিরোনামঃ

কোটিপতি তিন সন্তানের পিতা ইয়াসিন মাস্টার বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর প্রহর গুনছে

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: মোহাম্মদ আবির ,
শিক্ষাদানের মহান ব্রত যার কাজ তিনি শিক্ষক ইয়াসিন।শিক্ষকদের জাতি গঠনের কারিগর বলা হয়। কেননা একজন আদর্শ শিক্ষকই পারেন তার অনুসারী দের জ্ঞান ও ন্যায় দীক্ষা দিতে। তেমনি একজন গুনী শিক্ষক ছিলেন তিনি। শিক্ষার্থীদের কে মানবতাবোধ শিক্ষা দিয়েছেন।স্বীয় জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করে অনেক শিক্ষার্থীকে দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার শিক্ষক ইয়াসিন মাস্টার(৬৫)। এমনি ভাবে শিক্ষা দিয়েছিলেন উনার ৩ সন্তানকে মো:সোহেল মিয়া (৪০) মো:সাহিল মিয়া (৩৮) ও মো:রাসেল মিয়া (৩৬) নামে তিন সন্তানকে একজন দুবাই প্রবাসী আরেকজন মালয়েশিয়া প্রবাসী তৃতীয় জন ভালো অবস্থানেই আছেন। অনেক আশায় বুক বেঁধে সবটুকু সামর্থ্য দিয়ে যে তিন সন্তানকে মানুষ করেছিলেন তিনি গত আট বছর যাবত 8 মিনিটের জন্য তার খবর নেওয়ার প্রয়োজন মনে করেননি তার তিন সন্তান। সন্তানদের অযত্ন অবহেলায় বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর প্রহর গুনছে মানুষ গড়ার কারিগড় ইয়াছিন মাষ্টার নামে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষক ও পল্লী চিকিৎসক। পাকা ঘরবাড়ি ধানের জমি পেনশনের সব টাকা কৌশলে নিজেদের নামে লিখে নিয়ে চলে যায় তার এ অবস্থায় তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা কামনা করছেন তার সাথে থাকা তার এক মাত্র পুত্র বধু মোছা: মিনা বেগম।তার গ্রামের বাড়ি আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ধাতুর পহেলা গ্রামে। তার পুত্র বধু ও প্রতিবেশীরা জানায় ইয়াছিন মাষ্টারের তিন ছেলে কিন্তু মেয়ে নেই স্ত্রী মারা গেছে অনেক আগেই। তিন পুত্র সন্তানের কথা ভেবে বিয়ে করেননি তিনি। ছেলেদের লালন পালন করে লেখাপড়া শিখিয়ে স্বাবলম্বী করেছেন। ছেলেরা বিয়েও করেছে অবসর গ্রহনের পর ছেলেরা কৌশলে বাড়ি ঘর জমি ও পেনশনের টাকা নিজেদের নামে লিখে নিয়ে যায়। পরে ব্রেইন স্টোক করে ইয়াছিন মাষ্টার অসুস্থ হয়ে পড়লে ছেলেরা চিকিৎসা করতে অপারগতা প্রকাশ করে।চিকিৎসার জন্য সম্পতি ফিরত চাইলে তারা তাকে ফেলে বাড়ি থেকে চলে যায়। স্থানীয় ইউপি মেম্বার আ:আউয়াল জানান তিনি বিগত আট বছর দরে অসুস্থ হয়ে বিছানায় পরে আছেন তার প্রবাসী সন্তানরা তার কোন খবর নিচ্ছেননা বরং তারা সকল সম্পতি নিজেদের নামে লিখিয়ে বাড়ি থেকে চলেগেছে। বিনা চিকিৎসায় ইয়াছিন মাষ্টার এখন মৃত্যুর সাথে লড়াই করে চলছেন। তার শরীরের মাংসে পোকা ধরেছে কিন্তু অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেননা তার সাথে থাকা এক মাত্র পু্ত্র বধু মিনা বেগম।
তাই তিনি শশুরকে বাঁচাতে তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যর আবেদন জানিয়েছেন।
সাহায্যের জন্য ইয়াছিন মাষ্টারের পুত্রবধু মিনা বেগমের সাথে যোগাযোগের ফোন বা বিকাশ নম্বর – ০১৭৪২৫১৯০০৭।

 

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*