সংবাদ শিরোনামঃ

এক ইলিশ ৩০ হাজার টাকা !

মুন্সিগঞ্জের মাওয়া ঘাটে একটি ইলিশ মাছ বিক্রি হয়েছে ৩০ হাজার টাকায়। শুক্রবার (২৯ মার্চ) পদ্মাপাড়ের সিদাম আড়তে পদ্মার রূপালী ইলিশটি বিক্রি হয়।

শুক্রবার ভোরে পদ্মার সুরেশ্বর নামক এলাকা থেকে এক জেলে ৩ কেটি ৩০০ গ্রাম ওজনের ইলিশটি মৎস্য আড়তে নিয়ে আসেন। এরপর মাছটি তিনি ডাকে সিদাম দাশ নামে এক পাইকারের কাছে বিক্রি করেন ২৯ হাজার টাকায়।

এরপর তিনি ওই মাছটি এক হাজার টাকা লাভে বিক্রি করেন এক ব্যবসায়ীর কাছে।

আড়তদাররা জানান, সামনে পহেলা বৈশাখ। তারওপর আবার ইলিশটি দুর্লভ রকমের বড়। তাই এটির দাম এত বেশি উঠেছে। একইসাথে রাজধানী থেকে শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীরা মোবাইল ফোনে মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বড় সাইজের ইলিশ খুঁজছেন। ফলে চাহিদা ও শখের কারণে দামও বেড়ে যাচ্ছে কয়েকগুণ।

ব্যবসায়ীরা আরো জানান, পহেলা বৈশাখ সামনে রেখে দূর-দূরান্ত থেকে অনেকে মাওয়ার পদ্মাসেতু এলাকায় ইলিশ কিনতে আসছেন। এসব কারণে পদ্মার রূপালী ইলিশের বাজারে এখন আগুন। তাজা একটি ইলিশ এখন বিক্রি হচ্ছে ৭ থেকে ১২ হাজার টাকা।

তবে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে দাম আরো বাড়ানো হতে পারে বলেও অনেকে মনে করছেন।

নাদিম মৎস্য আড়তের  পরিচালক মোঃ জালাল মৃধা জানান, গতকাল সকালে চাঁদপুর সংলগ্ন নদীর পদ্মার নামা থেকে দেড় কেজির বেশি ওজনের একটি ইলিশ তাদের আড়তে আসে। পরে মাছটি সাড়ে ১১ হাজার টাকায় রাজধানীর এক পাইকার কিনে নিয়ে যান। এছাড়া গতকাল সোয়া কেজি ওজনের দু’টি মাছ ৯ হাজার টাকায় করে বিক্রি করা হয়েছে। আর ১ কেজির কম ওজনের বিভিন্ন সাইজের এক হালি ইলিশ প্রকারভেদে ১০ থেকে ১১ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এক কেজির বেশী পরিমাপের বড় সাইজের ইলিশ এখন পাওয়াই যাচ্ছে না বলে তিনি জানান।

আঃ মজিদ মৎস্য আড়তের মালিক মো. মজিদ শেখ জানায়, গত কয়েকদিন থেকে এখানে পদ্মার বড় ইলিশের খুবই সঙ্কট রয়েছে। এক কেজি ওজনের ইলিশও পাওয়া যাচ্ছে না। মাত্র দু’দিন আগেও ইলিশের পাইকাররা ১ কেজির সামান্য কম ওজনের ৪টি ইলিশ ৫ হাজার টাকা দিয়ে বিক্রি করা হলেও গত সোমবার থেকে এসব ওজনের এক হালি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১২/১৩ হাজার টাকায়। এক কেজির বেশি ওজনের ইলিশ হঠাৎ হঠাৎ পাওয়া যায়। এগুলো বিক্রি হয় ১৪/১৫ হাজার টাকায়।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*