পীরগঞ্জে টিটিই’কে মারধর; প্রতিবাদে ট্রেন থামা বন্ধ

আবু তারেক বাঁধন, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধিঃ আন্তনগর ট্রেনের টিটিই রাসেলকে অন্যায়ভাবে মারপিট করা প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনিদ্দিষ্ট কালের জন্য ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে সকল প্রকার ট্রেন থামা বন্ধ ঘোষনা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। ষ্টেশনে এ সংক্রান্ত নোটিশ সাঁটানো হয়েছে। ট্রেন থামা বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় যাত্রীরা। পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশন মাষ্টার গোলাম রব্বানী জানান, বুধবার দিবাগত সাড়ে ৮ টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা অন্তনগর ট্রেনটি পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে এসে পৌঁছলে কতিপয় উৎশৃঙ্খল লোক ট্রেনের টিটিই রাসেলকে ট্রেন থেকে নামিয়ে মারপিট করে টাকা ও মোবাইল ফোন ফোন ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনায় ষ্টেশনে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়। পীরগঞ্জ থানা পুলিশ সহ দিনাজপুর জিআরপি পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। এরপর প্রায় আড়াই ঘন্টা পরে ট্রেনটি পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। তিনি আরো জানান, পীরগঞ্জ ডিএন কলেজের প্রভাষক কবিরুজ্জামানের স্ত্রী সহ দু’জন মহিলা পীরগঞ্জে আসার উদ্দেশ্যে টিকিট ছাড়া দিনাজপুরে ঐ আন্তনগর ট্রেনে উঠেন। তারা ট্রেনের এসি বগিতে গিয়ে বসেন। এ সময় টিটিই রাসেল তাদের টিকিট দেখতে চায়। টিকিট না থাকায় এ নিয়ে তাদের সাথে কথা কাটা কাটি হয়। পরে তারা টিটিই’কে ১০০ টাকা দেয় ঐ দুই মহিলা। এরই জেরে পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে ঐ টিটিই’র উপর হামলা চালানো হয়। আহত রাসেলকে পীরগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। এখন তিনি সেখানে চিকিৎসাধী রয়েছেন। পরে রেলের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। ঘটনার প্রতিবাদে পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে ট্রেন না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত দেয় কর্তৃপক্ষ। ঐ ঘটনায় দিনাজপুর জিআরপি থানায় ১১ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। এদিকে কবিরুজ্জামান রিচার্ডের অভিযোগ, তাড়াহুড়া করে ট্রেনে উঠতে গিয়ে তার স্ত্রী সহ দু’জন টিকিট করতে পারেনি। পরে ট্রেনে টিকিটের জন্য টিটিই রাসেলকে তারা টাকা দেয়। কিন্তু তিনি টিকিট দেননি। টিকিট চাইতে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে আমার স্ত্রী’র সাথে খরাপ আচরণ করেন এবং ট্রেন থেকে ধাক্কা দিয়ে নামিয়ে দিতে চান। এ ঘটনা মোবাইলে জানতে পেরে এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়। আমরা তাদের নিবৃত করার চেষ্টা করি। পীরগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রশিদ জানান, খবর পেয়ে থানা পুলিশ সেখানে যায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। বিষয়টি জিঅরপি পুলিশ দেখছেন। এদিকে ঢাকাগামী অন্তনগর ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করা যাত্রীর সকালে ষ্টেশনে এসে জানতে পারেন-এখানে ট্রেন থামবে না। এতে চরম বিপাকে পড়েন তারা। সেতাবগঞ্জে গিয়ে তাদের ট্রেনে উঠতে হয়। অন্যদিকে ঢাকা থেকে পীরগঞ্জগামী আন্তনগর ট্রেনের যাত্রীদের সেতাবগঞ্জ ষ্টেশনে নামিয়ে দেওয়া হয়। তারাও পড়েন বিপাকে। সকাল থেকে পীরগঞ্জ ষ্টেশনে আন্তঃনগর সহ কোন ট্রেন থামেনি। এতে লোকাল ট্রেনের যাত্রীরাও বিপাকে পড়ে। যাত্রী হয়রানি বন্ধে এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সুশীল সমাজ।, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি ঃ আন্তনগর ট্রেনের টিটিই রাসেলকে অন্যায়ভাবে মারপিট করা প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনিদ্দিষ্ট কালের জন্য ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে সকল প্রকার ট্রেন থামা বন্ধ ঘোষনা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। ষ্টেশনে এ সংক্রান্ত নোটিশ সাটানো হয়েছে। ট্রেন থামা বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় যাত্রীরা। পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশন মাষ্টার গোলাম রব্বানী জানান, বুধবার দিবাগত সাড়ে ৮ টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা অন্তনগর ট্রেনটি পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে এসে পৌঁছলে কতিপয় উৎশৃঙ্খল লোক ট্রেনের টিটিই রাসেলকে ট্রেন থেকে নামিয়ে মারপিট করে টাকা ও মোবাইল ফোন ফোন ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনায় ষ্টেশনে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়। পীরগঞ্জ থানা পুলিশ সহ দিনাজপুর জিআরপি পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। এরপর প্রায় আড়াই ঘন্টা পরে ট্রেনটি পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। তিনি আরো জানান, পীরগঞ্জ ডিএন কলেজের প্রভাষক কবিরুজ্জামানের স্ত্রী সহ দু’জন মহিলা পীরগঞ্জে আসার উদ্দেশ্যে টিকিট ছাড়া দিনাজপুরে ঐ আন্তনগর ট্রেনে উঠেন। তারা ট্রেনের এসি বগিতে গিয়ে বসেন। এ সময় টিটিই রাসেল তাদের টিকিট দেখতে চায়। টিকিট না থাকায় এ নিয়ে তাদের সাথে কথা কাটা কাটি হয়। পরে তারা টিটিই’কে ১০০ টাকা দেয় ঐ দুই মহিলা। এরই জেরে পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে ঐ টিটিই’র উপর হামলা চালানো হয়। আহত রাসেলকে পীরগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। এখন তিনি সেখানে চিকিৎসাধী রয়েছেন। পরে রেলের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। ঘটনার প্রতিবাদে পীরগঞ্জ রেল ষ্টেশনে ট্রেন না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত দেয় কর্তৃপক্ষ। ঐ ঘটনায় দিনাজপুর জিআরপি থানায় ১১ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। এদিকে কবিরুজ্জামান রিচার্ডের অভিযোগ, তাড়াহুড়া করে ট্রেনে উঠতে গিয়ে তার স্ত্রী সহ দু’জন টিকিট করতে পারেনি। পরে ট্রেনে টিকিটের জন্য টিটিই রাসেলকে তারা টাকা দেয়। কিন্তু তিনি টিকিট দেননি। টিকিট চাইতে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে আমার স্ত্রী’র সাথে খরাপ আচরণ করেন এবং ট্রেন থেকে ধাক্কা দিয়ে নামিয়ে দিতে চান। এ ঘটনা মোবাইলে জানতে পেরে এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়। আমরা তাদের নিবৃত করার চেষ্টা করি। পীরগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রশিদ জানান, খবর পেয়ে থানা পুলিশ সেখানে যায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। বিষয়টি জিঅরপি পুলিশ দেখছেন। এদিকে ঢাকাগামী অন্তনগর ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করা যাত্রীর সকালে ষ্টেশনে এসে জানতে পারেন-এখানে ট্রেন থামবে না। এতে চরম বিপাকে পড়েন তারা। সেতাবগঞ্জে গিয়ে তাদের ট্রেনে উঠতে হয়। অন্যদিকে ঢাকা থেকে পীরগঞ্জগামী আন্তনগর ট্রেনের যাত্রীদের সেতাবগঞ্জ ষ্টেশনে নামিয়ে দেওয়া হয়। তারাও পড়েন বিপাকে। সকাল থেকে পীরগঞ্জ ষ্টেশনে আন্তঃনগর সহ কোন ট্রেন থামেনি। এতে লোকাল ট্রেনের যাত্রীরাও বিপাকে পড়ে। যাত্রী হয়রানি বন্ধে এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সুশীল সমাজ।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*