ঠাকুরগাঁওর হরিপুর উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী টগর গণসংযোগে ব্যস্ত

নুর মোহাম্মদ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সচিবের এক ঘোষণার পর থেকেই হরিপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করছেন অনেকেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের পক্ষে সমর্থনকারীদের প্রচার-প্রচারণা। অনেকেই তাদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে সমর্থন ও দোয়া চাচ্ছেন। এরই মধ্যে বিভিন্ন চায়ের দোকানে আড্ডায় উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে মানুষের মুখে শুরু হয়েছে আলাপ-আলোচনা। এতে অনেকেই আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে মাঠে সরব হলেও চুপচাপ রয়েছে বিএনপি জোট। ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা জেলাসহ কেন্দ্রে লবিং শুরু করে দিয়েছেন। শুরু করেছেন দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়। নিজেকে সম্ভাব্য প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে অনেকে গণসংযোগও শুরু করেছেন। মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও হরিপুর উপজেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ, এ কে এম শামীম ফেরদৌস টগর বলেন, ছাত্রজীবন থেকেই আ’লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত আছি। জনগণ ও দলীয় নেতা-কর্মীদের ভালোবাসায় এক সময় হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও হরিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলাম। এই উপজেলার মানুষ আমাকে ভালোবেসে ভোট দিয়ে ২০০৯ সালে নির্বাচিত করেছিলেন এবং বিগত নির্বাচনে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলাম। জনগণের ভালোবাসায় এখনো আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো এবং যত দিন বেঁচে থাকবো দলের জন্য কাজ করে যাবো। দলের দুঃসময়ে নেতা-কর্মীদের পাশে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করে দলকে সু-সংগঠিত করেছেন। উপজেলার সাধারণ মানুষের কাছ থেকে তিনি ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন। দলীয় মনোনয়ন পেলে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী বলে তিনি জানান। প্রবীণ এ রাজনীতিবিদ ৫ বার ঠাকুরগাঁও-২ আসনের মনোনয়ন সংগ্রহ করছিলেন। তার বিশ্বাস দল তাকে মনোনয়ন দেবে। সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ, এ কে এম শামীম ফেরদৌস টগর বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনগণের আহ্বানে আমি ২০০৯ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছিলাম। দলীয় নেতাকর্মী ও জনগণের ভালবাসায় এবারও উপজেলা নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছি। আশা করি দলীয় নেতা-কর্মী ও জনগণের সমর্থনের কারণে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ দিবেন। জনগণের ভোটে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে হরিপুর উপজেলাকে মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলবো।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*