মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন জননেত্রী #শেখ_হাসিনা সমীপে আকুল আবেদন

প্রিয় নেত্রী…বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিজের আত্মার ভেতর লালন করা আমি একজন বঙ্গবন্ধুর নগণ্য নবীন সৈনিক. একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আপনার নেতৃত্বে মহাজোটের নিরংকুশ বিজয় লাভ এবং টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে পারায় আল্লাহ তায়ালার নিকট এই জন্য শুকরিয়া আদায় করি….আমি জানি,আমার এই নগন্যের লিখা আপনার দৃষ্টিগোচর হবে না কখনো,তারপরেও প্রিয় নেত্রিকে নিজের মনের অভিব্যক্তি নিজের মত করেই আপনার নিকট পেশ করলাম…আমার জন্ম চট্টগ্রাম শহরে,তাই আমি মূলতঃ আমার জন্মশহরের আঞ্চলিক কিছু ব্যাপারে আপনার কাছে আমার আকুল আবেদন নিয়েই কিছু বলার চেষ্টা করছি….প্রিয় নেত্রী,আপনি দীর্ঘজীবী হোন……।।। ###চট্টগ্রাম…….!!! >>>রাজধানী ঢাকার পরই বাংলাদেশের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ শহর চট্টগ্রাম.বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে পরিচিত এই শহরকে ঘিরেই বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালিত হয়ে থাকে.চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর দিয়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাথে বাংলাদেশের বেশীরভাগ বাণিজ্যিক কার্যক্রম হয়.স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দল সরকার গঠন করে.উক্ত সরকারের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন চট্টগ্রামের অনেক সিংহ পুরুষ.বিগত বিএনপি সরকারের আমলেও এই চট্টগ্রামের সন্তান হিসেবে বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি মন্ত্রী হিসেবে বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন.কিন্ত,ব্যক্তিগতভাবে সবাই নিজেদের অবস্থার পরিবর্তন করলেও এই চট্টগ্রাম পায়নি তার কাঙিত পরিবর্তন.বদলায়নি তার ভাঙাচোরা রাস্তাঘাট সহ এমনতর আরো অনেক কিছুই.বিগত ২০০৯ ইংরেজি সাল হইতে নির্বাচনে বিজয়ের মধ্যে টানা দুই বার মেয়াদে বর্তমান আওয়ামী মহাজোট সরকার গঠন করে এবং তথায়ও স্থান পান চট্টগ্রামের কিছু কৃতি সন্তান…….. #হে_দেশরত্ন—আপনি ২০০৯ ইংরেজি সালে প্রথম মেয়াদে সরকার গঠন করে চট্টগ্রামের ভাগ্য পরিবর্তনের যে উদ্যোগ গ্রহন করেছেন,তা আপনার দ্বিতীয় মেয়াদে সরকারে থাকাকালীন সময়ে উক্ত উদ্যোগের প্রায় সিংহভাগই পূরন করেন.আজ চট্টগ্রাম তার ভাঙাচোরা চেহেরা বদলে পরিবর্তিত হয়ে পৃথিবীর আধুনিক শহরগুলির একটিতে পরিণত হয়েছে,যার সব কিছুই আপনার অবদান……পুরো চট্টগ্রাম আজ যেন ফ্লাইওভার এর শহর.রাস্তাঘাটের জীর্ণ দশা আজ আর নেই.সুউচ্চ দালান কোঠা,আন্তর্জাতিক মানের হোটেল, রেস্টুরেন্ট প্রভৃতিই যেন এই শহরকে নতুন এক রঙে রাঙিয়ে দিয়েছে……….।।।। #হে_উন্নয়নের_জননী—-আপনার নির্দেশে চট্টগ্রামকে নতুন রুপ দানে এবং চট্টগ্রামের বিপুল উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর যে সব কর্মী নিরলসভাবে দলীয় ও ব্যক্তিগতভাবে এই উন্নয়নের কাজে নিজেদেরকে বিলীন করে দিয়েছেন,সেই সব কর্মীদের মূল্যায়ন করা আজ যেন সময়ের দাবী হয়ে উঠেছে.তাই এই দাবীকে আমাদের চট্টগ্রামের আপামর জনতার দাবী হিসেবেই আমি উল্লেখ করতে চাই…… #হে_বঙ্গবন্ধু_কন্যা—–একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামবাসী আপনার এই উন্নয়নের মূল্যায়ন করতে কোন প্রকার ভূল করেনি,যার দরুন বিগত ৩০শে ডিসেম্বর স্বতস্ফুর্তভাবে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় নৌকা প্রতীকে নিজেদের আস্থা রাখতে কোন প্রকার সংশয়বোধ করেনি.যার ফলশ্রুতিতে চট্টগ্রামের সবকটি আসনে মহাজোটের প্রত্যেক প্রার্থী বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন এবং আপনি ৩য় মেয়াদে সরকার গঠন করে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সারাবিশ্বে অনন্য নজির স্থাপন করেন…….. #হে_প্রিয়_নেত্রী—-এখন সময় এসেছে প্রকৃত ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করার.যারা আপনার নির্দেশকে অক্ষরে অক্ষরে পালন করে আওয়ামীলীগের সাফল্য ও উন্নয়নের ছোঁয়ায় এই বাণিজ্যিক নগরীকে পৃথিবীর উন্নত শহরগুলির একটিতে পরিণত করেছেন.আমরা যারা নবীন এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্কে আজ বুকে লালন করছি,আমরা কিন্ত বঙ্গবন্ধুকে দেখিনি,শুরুতে তার আদর্শ পরিপূর্ণভাবে উপলব্ধি করতে পারিনি.বঙ্গবন্ধু এবং তার আদর্শ যিনি আমাদের অন্তরে ডুকিয়েছেন,তিনি আর কেউ নন.চট্টলবীর,চট্টগ্রামের সিংহ পুরুষ,সাবেক নগরপিতা মরহুম আলহাজ্ব #এবিএম_মহিউদ্দিন_চৌধুরী.সারাজীবন যিনি বিভিন্ন প্রলোভনকে এড়িয়ে গিয়েছেন,মন্ত্রীত্বের মতো লোভনীয় পদকে যিনি উপেক্ষা করে গিয়েছেন,কেবল এই চট্টগ্রামকে ভালবেসে.আজ চট্টগ্রাম শহরে বঙ্গবন্ধুর অধিকাংশ সৈনিক তারই হাতে গড়া.উক্ত প্রয়াত নেতার যোগ্য পুত্রকে আপনি নিজের কাছে টেনে নিয়েছেন,দলীয় পদে আসীন করে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কর্মে নিয়োজিত করেছেন এবং ইতিমধ্যে যোগ্য পিতার যোগ্য পুত্র হিসেবে আপনার প্রতিটি আদেশ,নির্দেশ সফলতার সাথে সমাপ্ত করেছেন,যার দরুন আমরা চট্টগ্রামবাসী সত্যিই আনন্দিত,গর্বিত এবং চট্টগ্রাম সংসদীয় ০৯ নং আসনে মনোনয়ন দিয়ে তার যে প্রতিদান দিয়েছেন.উক্ত প্রতিদানকে সাদরে গ্রহণ করে আপনার আস্থার পরিপূর্ণতা হিসেবে উক্ত আসনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে মহান সংসদের সদস্যপদ লাভ করেন.ইতিমধ্যেই আমরা বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রকাশিত খবর মারফত আরো জানতে পেরেছি,সেই সিংহ শাবক জনাব #ব্যারিস্টার_মহিবুল_হাসান_চৌধুরী_নওফেল ও এই চট্টগ্রামেরই আরো দুই আপামর জনগনের প্রিয় নেতা জনাব #সাইফুজ্জামান_চৌধুরী_জাবেদ ও #ডক্টর_হাছান_মাহমুদকে আপনি আপনার নব নির্বাচিত মন্ত্রী সভায় স্থান দিয়ে চট্টগ্রামবাসীকে গর্বিত ও ঋণী করেছেন……..।।।। #হে_জননেত্রী—-আপনার প্রতিটি নির্দেশ পালনে চট্টগ্রামের সেই ত্যাগীদের নেতাদের ব্যাপারে আপনার সুদৃষ্টি কামনা করাই এই আকুল আবেদনের প্রকৃত উদ্দেশ্য………..।।। প্রয়াত চট্টলবীরের যোগ্য উত্তরসূরি,চট্টগ্রামের নগর পিতা ও মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক জনাব আলহাজ্ব #আ_জ_ম_নাছির_উদ্দিন,,,,,চট্টগ্রামকে উন্নত বিশ্বের অনান্য শহরের মত করে গড়ে তুলতে মূখ্য ভূমিকা পালনকারী চট্টগ্রাম উন্নয়ন কতৃপক্ষ (চউক) এর চেয়ারম্যান এবং মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মানিত কোষাধ্যক্ষ জননেতা আলহাজ্ব #আবদুছ_ছালাম এবং বর্তমান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের অন্যতম অভিভাবক ও ত্যাগী নেতাদের তালিকায় প্রথমদিকে অবস্থানকারী প্রিয় নেতা জনাব #ডাঃ_আফসারুল_আমিনের যথাযথ মূল্যায়ন করতে আমরা আপামর চট্টলাবাসী আপনার কাছে আকুল আবেদন জানাই…….. >মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কন্যার কাছে এই ত্যাগী নেতাদের সঠিক মূল্যায়ন ও আপনার নেতৃত্বে গঠিত নতুন সরকারের মন্ত্রী পরিষদের তালিকায় এই সব ত্যাগী নেতাদের নাম স্থান পাবে………. >আমরা চট্টগ্রামের আপামর জনসাধারণ আমাদের প্রিয় নেত্রীর কাছে এই আকুল আবেদন করছি এবং আমাদের এই আকুল আবেদনকে প্রিয় নেত্রী যথাযথ মূল্যায়ন করবে….. আমরা চাটগাঁইয়াদের এই আকুল আবেদন.

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*