সংবাদ শিরোনামঃ

মুজীব বাহিনীর সদস্যের সার্টিফিকেট আত্মসাৎ করার অভিযোগ

মো: খোকা, ভোলা প্রতিনিধি: দেশ-প্রেমিক মুজীব বাহিনীর সদস্য মোঃ আলম এর সাথে প্রতারণা করে তার মুজীব বাহিনীর সার্টিফিকেট আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে শিতল চন্দ্র পৌদ্দার দাস এর বিরুদ্ধে। ভোলায় বোরহানউদ্দিন ৭নং টগবী-ইউনিয়ন এর ৮নং ওয়ার্ড মুলাই-পত্তন গ্রামের বাসিন্দা আলম। যুদ্ধশুরু হওয়ার পরপরই দৌলত-খানে যোগদান করেন মুজীব বাহিনীতে শশীর দলে। যোগদান করার সাথে সাথে ১৭ দিন ট্রেনিং নেন, ট্রেনিং শেষ করে দৌলত-খান কালারার বাড়িতে অবস্থান নেন। সেখান থেকে যুদ্ধ করে ভোলা সদর ইলিয়াস মাস্টার এর বাড়িতে অবস্থান নেন, দীর্ঘদিন ধরে সেইখানে থেকে যুদ্ধ করে রামদাসপুর চেয়ারম্যান রফিক চৌধুরী বাড়িতে অবস্থান করেন। সকল যুদ্ধ শেষ করে ঢাকা ইকবাল হলে অবস্থান নিয়ে অর্স্ত্র জমাদেন ঢাকা স্টেডিয়ামে। অস্ত্র জমা দেওয়ার পরে দেশ প্রেমিক হিসেবে তিনি  পুরষ্কার পান ১০ টাকা। প্রায় দুই মাস পড় মুজীব বাহিনীর সদস্য পরিচয় পত্র সফিউল্ল্যাহ চৌধুরীর নিজ হাত থেকে গ্রহণ করেন আলম।
জানা যায়, প্রায় ১বছর পর আলম এর প্রতিবেশী শিতল চন্দ্র পৌদ্দার দাস তার কাছ থেকে মুজীব বাহিনীর পরিচয়-পত্রটি বিভিন্ন কৌশল করে নিয়ে নেন চাকরি দিবেন বলে। বেশ কিছু দিন পরে আলম  চাকরির কথা জানতে চাইলে তিনি জানিয়েছেন কিছু টাকা লাগবে, বেশ কিছুদিন পরে টাকা যোগাড় করে দিয়েছেন তার পর কিছুদিন চলে যায়। আলম এর চাকরি দেননি মুজীব বাহিনীর পরিচয়-পত্রও ফেরত দেননি, গড়িমসি করে চলে যায় র্দীঘ কয়েকটি বছর। আলম এর পরিবার-স্বজনদের এমনটাই প্রত্যাশা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী শিতল চন্দ্র দাস কে আইনের আওতা এনে ব্যবস্থা নিবেন এবং আলম এর সার্টিফিকেট উদ্ধার করে আলম এর কাছে পিরিয়ে দেবেন।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*