কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে দুর্ধর্ষ ডাকাতি নারীসহ আহত-৭

মোঃ আব্দুর রহিম বাবলু,কুমিল্লা প্রতিনিধি:

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের ঢালুয়া ইউনিয়নের চৌকুড়ি গ্রামের কাজী অহিদুর রহমানের বাড়ীতে এক দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে এই ঘটনা ঘটে। এতে নারীসহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়। আহতরা হলেন, মৃত কাজী অহিদুর রহমানের স্ত্রী জাকিয়া বেগম, ছেলে আবুল হাশেম, আবুল কাশেম, নূরুন নবী, মেয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ শিক্ষার্থী লিজা আক্তার, পুত্রবধু মাহফুজা বেগম ও লিমা বেগম। আহতদের গুরুতর অবস্থায় প্রথমে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে আবুল হাশেমের অবস্থা আশঙ্কা জনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ও পরিবারিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত আনুমানিক দেড়টায় কাজী অহিদুর রহমানের বাড়ীতে ২০-২৫ জনের এক দল সশস্ত্র ডাকাত বাড়ীর মূল ফটকের তালা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। ডাকাতদল ঘরের প্রত্যেক কক্ষে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ঘরের আলমিরাতে রক্ষিত মালামাল লুট করার সময় পরিবারের সদস্যরা চিৎকার করলে তাদের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও মারধর করে ৭ জনকে গুরুতর আহত করে। ডাকাত দলের সদস্যরা বাড়ীর পাশ্ববর্তী অপর ৪টি ঘরের সামনে অবস্থান করে তাদেরকে গালমন্দ এবং হুমকি-ধমকি দিয়ে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে। এ সময় ডাকাত দল ঘরের আলমিরাতে রক্ষিত নগদ প্রায় ৬ লাখ টাকা, ১৮ ভরি স্বর্ণালংকার, ৭টি মোবাইল ফোন সেট ও ৫টি টর্চ লাইট লুট করে নিয়ে যায়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১৫ লাখ টাকা। খবর পেয়ে কুমিল্লা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, সহকারী পুলিশ সুপার (চৌদ্দগ্রাম সার্কেল) সাইফুল ইসলাম ও কুমিল্লা ডিবি (ওসি) মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম পিপিএম ঘটনার সত্যতা লিশ্চিত করে জানান, সংবাদ পেয়ে রাতেই পুলিশ পাঠানো হয় এবং আমরা ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছি। অভিযোগ পেলে নিয়মিত মামলা রুজু করে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*