কুমিল্লা-০৭:আওয়ামীলীগ- বিএনপিতে ১১ নতুন মুখ

আব্দুর রহিম বাবলু :
স্বাধীনতার পর কুমিল্লা-০৭ (চান্দিনা) আসনে দেশের প্রধান দুইটি রাজনৈতিক দলের হয়ে সংসদে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র দুই নেতা অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এবং ড. রেদোয়ান আহমেদ। এবার একাদশ সংসদ নির্বাচনে দুইটি দলেই নতুন মুখ আনতে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন আওয়ামীলীগে সাত ও বিএনপি চার প্রার্থী। ১০টি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঘুরে-ফিরে কখনও আলী আশরাফ আবার কখনও রেদোয়ান নির্বাচিত হয়ে জাতীয় সংসদে চারবার করে আট বার নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। ১৯৭৩ সালে স্বাতন্ত্র প্রার্থী হয়ে অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৯৯৬ সালে দ্বিতীয়, ২০০৮ সালে তৃতীয় ও ২০১৪ সালে চতুর্থবারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। অপরদিকে, ১৯৭৯সালে ধানের শীষ প্রতীকে প্রথম বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ড. রেদোয়ান আহমেদ। ১৯৮৬ সালে নাঙ্গল প্রতীকে দ্বিতীয় বার, ১৯৯১সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে তৃতীয়বার এবং ২০০১ সালে আবারও ধানের শীর্ষ প্রতীকে চতুর্থবারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ড. রেদোয়ান আহমেদ। বাকি ২টি সংসদ নির্বাচনের ১৯৮৮ সালে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনী খন্দকার কর্ণেল রশিদ এর বড় ভাই খন্দকার আব্দুল মান্নান ফ্রিডম পার্টি থেকে এবং ১৯৯৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারীর নির্বাচনে খন্দকার কর্ণেল রশিদ ফ্রিডম পার্টি থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। যদিও ৫ ফেব্রুয়ারীর ওই নির্বাচনটি বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। ১৯৭৩সালের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচিত হওয়ার পর নৌকায় উঠেন। তারপর থেকে এ পর্যন্ত ছাড়েননি নৌকাকে। তবে ড. রেদোয়ান আহমেদ ধানের শীষ প্রতীকে শুরু করলেও একাধিকবার দলপরিবর্তন করে ২০০৬ সালে বিএনপিকে বিদায় জানিয়ে এলডিপি নামে নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করেন। পরবর্তীতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে এলডিপি জোট করায় আসন্ন সংসদ নির্বাচনে জোটের প্রার্থীতা চাচ্ছেন এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ। তবে উপজেলা বিএনপি চান নতুন মুখ। জোটের প্রার্থী নয়, দলের প্রার্থীকেই মনোনয়ন দেওয়ার জন্য বিএনপি’র নীতি-নির্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষন করেন বিএনপি নেতা-কর্মীরা এ আসন থেকে দুইটি প্যানেলে বিএনপি’র মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন চার জন। তারা হলেন- উপজেলা বিএনপি সভাপতি আতিকুল আলম শাওন, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজ উদ্দিন ভূইয়া, উপজেলা যুবদল সভাপতি ইঞ্জি. কাজী সাখাওয়াত, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি কাইয়ূম খান। তবে বিএনপি’র মধ্যে দুইটি প্যানেল থাকলেও দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে ভিন্নতা নেই কারও। সকলের প্রত্যাশা জোট নয়, বিএনপি থেকেই যেন মনোনয়ন দেয়া হয়। আর সেক্ষেত্রে বিএনপি থেকে যাকেই মনোনয়ন দিবে সকলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তবে জোটের প্রার্থীতায় ছাড় দিতে নারাজ এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ। পঞ্চম বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার প্রত্যাশায় ২০ দলীয় জোটের প্রার্থীতা পেতে জোর লবিং তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। এদিকে, আওয়ামীলীগ থেকে বর্তমান এমপি ছাড়াও নতুন সাতজন প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন। তবে এ আসনে আওয়ামীলীগের মনোয়ন প্রত্যাশায় রয়েছে দুইটি প্যানেল। মনোনয়ন সংগ্রহ ও জমা প্রদানকারীরা হলেন- সাবেক ডেপুটি স্পিকার বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এম.পি, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত খ্যাতনামা চিকিৎসক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক নারী নেত্রী নাজনীন আক্তার, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা শাহাজাদা মিঞা খোকা, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা মো. মুজিবুর রহমান, সাবেক পুলিশ সুপার মো. খলিলুর রহমান ভূইয়া, কুমিল্লা ল কলেজের অধ্যক্ষ ও চান্দিনা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক ড. মনজুর কাদের, চান্দিনার মাইজখার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহ্ সেলিম প্রধান। দীর্ঘ ৪৫ বছরের রাজনৈতিক ধারা অব্যাহত রেখে শেষ বারের মত দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন চার বারের সংসদ সদস্য অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপি। দলের মনোনয়ন পেতে জোর লবিং চালাচ্ছেন তিনি। অধ্যাপক আলী আশরাফ এমপি সমর্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগ, সহযোগি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রত্যাশা তাকেই দলীয় মনোনয়ন দিবেন আওয়ামীলীগ। অপরদিকে, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত সমর্থিত আওয়ামীলীগ, সহযোগি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রত্যাশা অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপালকে মনোনয়ন দিয়ে নতুন মুখ আনবে আওয়ামীলীগ।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*