সংবাদ শিরোনামঃ

লালমনিরহাট-১ আসনে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন এমপি মোতাহার

মিজানুর রহমান,লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

পাটগ্রাম-হাতীবান্ধা উপজেলা নিয়ে গঠিত লালমনিরহাট-১ আসন। এ আসনের বর্তমান এমপি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেনের এলাকায় রয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন পথসভা, জনসভা, মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা ও গণসংযোগের মাধমে নৌকার পক্ষে জনমত সৃষ্টি করে যাচ্ছেন তিনি। তুলে ধরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের প্রয়োজনীতা। এ আসন থেকে তার মনোনয়ন অনেকটাই চূড়ান্ত বলে দাবি তার সমর্থকদের। সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে পরিচিত মোতাহার হোসেন ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। সহজ-সরল মানুষ হিসেবে এলাকায় রয়েছে তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা। হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নের পূর্ব সারডুবী গ্রামে এক সল্ফ্পান্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া মোতাহার হোসেনের শৈশবে খেলাধুলার প্রতি বিশেষ ঝোঁক ছিল। তিনি ফুটবল, ভলিবল ও ব্যাডমিন্টন খেলতে পছন্দ করতেন। ১৯৬২ সালে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময়ই তিনি বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং পরবর্তী সময়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যুক্ত হন। ১৯৬৬ সালে ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে ঐতিহাসিক ৬ ছফা আন্দোলনের ছাত্রসমাজের নেতৃত্ব দেন। এ ছাড়া ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানসহ দেশের স্বাধিকার আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। রাজনীতি করার পাশাপাশি তিনি সমাজসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখেন, যার ফলশ্রুতিতে তিনি ১৯৮৫ সালে এবং ১৯৯০ সালে পরপর দু’বার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৯১ সালে লালমনিরহাট-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে মাত্র দুই হাজার ৭১২ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। এরপর ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। অষ্টম সংসদে বিরোধীদলীয় হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নবম জাতীয় সংসদে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতিসহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হিসেবে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। মোতাহার হোসেন হাতীবান্ধা ও পাটগ্রাম উপজেলায় মসজিদ, মন্দির, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। লালমনিরহাট জেলায় আড়াই হাজার কোটি টাকার টাকার উন্নয়নমূলক কাজে তারই অবদান বেশি। মোতাহার হোসেন সমকালকে বলেন, দুর্দিনে আমি নেতাকর্মীদের সঙ্গে ছিলাম। আগামীতেও থাকব। এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন ও দলকে সুসংগঠিত করেছি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আশা করি এবারের নির্বাচনেও স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগ থেকে আমি মনোনয়ন পাব। উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আগামী নির্বাচনে এ আসন থেকে মনোনয়ন দিলে তাকে বিজয় উপহার দিতে পারব ইনশাল্লাহ।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*