পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়তে ১৫ সেপ্টেম্বর দেশটাকে পরিস্কার করি দিবস সফল করুন

“চারপাশে ময়লা নাই, এমন একটি দেশ চাই” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়ে তুলতে ৪র্থ বারের মতো আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর “দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস ২০১৮”পালন করবে সামাজিক সংগঠন “পরিবর্তন চাই”। অদ্য ১২ সেপ্টেম্বর সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে চট্টগ্রাম বিভাগের সার্বিক পরিকল্পনা নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পরিবর্তন চাই, চট্টগ্রাম জেলা সমন্বয়ক ও বিভাগীয় সহ-সমন্বয়ক নোমান উল্লাহ বাহার। এতে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশবিদ অধ্যাপক ড. ইদ্রিচ আলী, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, নারীনেত্রী ও চসিক’র প্রাক্তন প্যানেল মেয়র রেখা আলম চৌধুরী, পরিবেশকর্মী ও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এনআইটি)’র চেয়ারম্যান আহসান হাবিব, পরিবর্তন চাই-চট্টগ্রাম জেলার সহ-সমন্বয়ক মোঃ আশিকুল আলম আশিক, কাইয়ুমুর রশিদ বাবু, হামিদুর রহমান, রাশেদুল ইসলাম প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে নোমান উল্লাহ বাহার বলেন, যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলার নাগরিক অভ্যাস পরিত্যাগ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বহুমাত্রিক ঘাটতি দূরীকরণ, বর্জ্যকে সম্পদে রুপান্তরের চেষ্ঠা, পরিবেশ সুরক্ষা, নগরগুলোকে বাসযোগ্য করা, গ্রামাঞ্চলেও পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির প্রয়াসে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর সমগ্র বাংলাদেশে দেড় লক্ষাধিক তরুণ-তরুণীর সক্রিয় অংশগ্রহণে সকাল ১১.০০ টা থেকে দুপুর ১.০০ টা পর্যন্ত একযোগে ঝাড়–-বেলচা হাতে কার্যকর পরিচ্ছন্নতা অভিযান অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের প্রায় সবকটি জেলা, শহর এবং বেশকটি উপজেলার ১৬৪ টি স্থানে অনুষ্ঠিতব্য এই বিশেষ অভিযানের দিন চট্টগ্রাম মহানগরে কোতোয়ালী মোড় থেকে যাত্রাশুরু করে দুইভাগে বিভক্ত হয়ে একটি গ্র“প লালদিঘী হয়ে আন্দরকিল্লা এবং অন্য গ্র“প নিউমার্কেট-সরকারি সিটি কলেজ হয়ে ফিরিঙ্গি বাজারস্থ জেএমসেন স্কুল মাঠে সমাপনী পর্বে স্বেচ্ছাসেবীরা সংযুক্ত হবে। চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার, ফেনী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড, মীরসরাই, সন্দ্বীপ, রাঙ্গুনীয়া, হাটহাজারী, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, হালিশহর, চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, পটিয়া এবং আরো বিভিন্ন এলাকায় ব্যক্তিগত, সামাজিক ও বিভিন্নভাবে প্রায় ৫০,০০০ তরুণ-তরুণী অংশগ্রহণ করবে।
ঐদিন দেশবাসী স্ব-স্ব অবস্থান থেকে আমাদের চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করে নিকটস্থ ডাস্টবিনে ফেলতে এবং খোলা স্থানে ময়লা আবর্জনা না ফেলার জন্য সচেতনতা সৃষ্টির আহ্বান জানাবো। নিজেদের বাড়ির আঙ্গিনা পরিষ্কার করার মাধ্যমে শুরু হবে দিবসের কার্যক্রম, চলবে শহরের অলিগলির ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করার অভিযান।
‘দেশটাকে পরিষ্কার করি’ দিবসের অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে পরিবেশ দূষণ রোধ, নির্দিষ্ট রাস্তা বা এলাকা পরিষ্কার করে দৃশ্যমান পরিবর্তনের মাধ্যমে বাসযোগ্য বাংলাদেশ গড়ে তোলা। যেখানে সেখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলার মানসিকতা পরিবর্তন হোক। এটি যে শুধু একদিনের কর্মসূচি তা নয়, সারাবছরই নিজেদের চারপাশকে পরিষ্কার রাখার অভ্যাস গড়তে হবে।
পাহাড়, নদী ও সাগর বেষ্টিত একটি নান্দনিক স্থান বৃহত্তর চট্টগ্রামেও পরিবেশ সচেতনতা বৃদ্ধি করে সম্মিলিতভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বাসযোগ্য চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশ গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন নেতৃবৃন্দ।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*