সংবাদ শিরোনামঃ

বিএনপি আগেই ঠিক করে রেখেছে কখন কী বলবে: ওবায়দুল কাদের

রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ দাবি করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তিন সিটিতে বিএনপি নির্বাচনের জন্য অংশ নেয়নি। তাদের উদ্দেশ্যই ছিল, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করে বহির্বিশ্বে সরকারের ইমেজ নষ্ট করা। বিএনপি তিন সিটি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার নামে অভিনয় করেছে। তারা আগেই ঠিক করে রেখেছে, সকালে কী বলবে, বিকেলে কী বলবে। বিএনপি অনিয়মের যে অভিযোগগুলো করছে, সেগুলো তারা আগে থেকেই লিখে রেখেছিল। সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিন সিটির নির্বাচন নিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। ভোট গ্রহণ শেষে বিকেলে দলের প্রতিক্রিয়া জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা নয়াপল্টনে বসে বিভ্রান্তি ও অপপ্রচার ছড়িয়েছেন। মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়ে উস্কানি দেওয়ার অপচেষ্টাও করেছেন বিএনপির প্রার্থীরা। এমনকি নিজেদের লোক দিয়ে গণ্ডগোল সৃষ্টি করার চেষ্টা করেছেন। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করাই ছিল বিএনপির মূল লক্ষ্য- এটা দিবালোকের মতো পরিস্কার। সেতুমন্ত্রী বলেন, কেউ যদি প্রতিযোগিতা ভেস্তে দিতে মাঠে নামে, তাহলে কি কিছু করার থাকে? কেউ যদি স্রেফ অভিযোগের পসরা সাজিয়ে মিথ্যাচার শুরু করে, পরাজয়ের জন্য নিজের ক্ষেত্র তৈরি করতে মরিয়া থাকে এবং নির্বাচনকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়, তাহলে কী করার আছে? তিনি বলেন, রাজশাহীতে বিএনপির প্রার্থী ভোট না দিয়ে সারাদিন নাটক করেছেন। বরিশালে বিএনপির প্রার্থী তার বাড়ির সামনে রোববার রাত থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত যেসব কর্মকাণ্ড করেছেন, তা দেখে বোঝা যায় যে তিনি নির্বাচন বানচাল করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন। এর আগে তিন সিটি নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা সকাল থেকে ধানমণ্ডি কার্যালয়ে অবস্থান নিয়ে ভোটের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন। বিকেলে ভোট গ্রহণ শেষ হওয়া পর্যন্ত টেলিফোনে তিন সিটি করপোরেশনের দলের স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেন তারা। দুপুরে সেখানে আরেক সংবাদ সম্মেলনে তিন সিটি নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। তিনি বলেন, দু-একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া এ তিন নগরে অবাধ, সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ হয়।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*