সংবাদ শিরোনামঃ

ভোলা ভেদুরিয়ায় স্কুল ছাত্রী ৭ মাসের অন্তসত্তা

খোকা, ভোলা জেলা প্রতিনিধি:

ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের চরকালী ২নং ওয়ার্ডের দিন মজুর মোঃ ইউছুফ পলফান এর মেয়ে মারজান আক্তার (১৫) অস্টম শ্রেণির ছাত্রী গত ৮/১/১৮ ইং তারিখ রাশেদ পিতা: ফরিদ মারজানকে জনৈক রুস্তম আলীর বসত বাড়ীর বারান্দায় নিয়ে ধর্ষন করে। সর জমিনে গিয়ে জানাযায়, মারজানের মা শাহিদা সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে বলেন, আমার একমাত্র মেয়ে মারজান। ফরিদ এর ছেলে রাশেদ আমার মেয়েকে অনেক দিন যাবৎ কু-প্রস্তাব দিয়ে থাকে। গত ৪ থেকে ৫ মাস আগে রাশেদের গার্ডিয়ানকে আমি বিষয়টি জানালে রাশেদের মা, রাশেদ ও মারজান ছোট বলে বিষয়টি এরিয়ে যায়। ২০ রমজান রাশেদ আমার ঘরে এসে মারজানকে হাতে ধরে নিয়ে যায় রাশেদের বাড়িতে। সেখানে নিয়ে বিয়ে করার নাম দিয়ে আমার মেয়েকে একাধিকবার ধর্ষন করে। আমি মারজানকে বাড়িতে না পেয়ে বিভিন্ন আত্নীয় স্বজনের নিকট খোজাখুজির পরে মারজান বাড়িতে ফিরে আসে। আমার কাছে এস রাশেদ যা করছে তার সকল কিছুই আমাকে খুলে বলে। আমি রাশেদের গার্ডিয়ানকে জানালে আমাকে তাদের বিয়ে করার বিষয়ে বলেন। এভাবে কয়েকদিন পর বাড়ির লোকজন বিভিন্ন কথা আমার মেয়েকে। ৪/৫ দিন পর মারজান অসুস্থ হয়ে পরে। তাৎক্ষনিক পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে চিকিৎসক বলেন, মারজান ৭ মাসের অন্তসত্তা। তারপর বিষয়টি মারজান এর মা রাশেদ এর অভিভাবক জানালেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয় নি। পরবর্তীতে মারজান এর মা বাদি হয়ে রাশেদ এর বিরুদ্ধে ভোলা সদর সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করে। যাহার নং- ৩৪৩/৫৯। এ ব্যপারে ভেলুমিয়া ফাড়ির ইনচার্জ গোলাম মাওলার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, মারজান বর্তমানে ৭ মাসের অন্তসত্তা। মামলাটি বর্তমানে চলমান আছে। সর জমিনে গিয়ে আরো জানাযায়, ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবু পাটোয়ারী ও স্থানীয় কাজী আকবর হোসেন মামলার বাদীকে জিম্মি করে জোর পূর্বক মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। শাহিদা আরো জানান, আকবর হোসেন ঈদের ১ সপ্তাহ পরে মারজানের বিয়ের কথা বলে ৮ হাজার দাবী করে, আমি তাকে ৪ হাজার টাকা দেই। এ ব্যপারে স্থানীয় লোকজন আরো বলেন, আবু পাটোয়ারী ক্ষমতার দাপটে মারজান ও তার পরিবার মামলা প্রত্যহার না করলে এলকা ছাড়া করবে । এ ব্যপারে স্থানীয় জনগন ও মারজানের পরিবার প্রশাসনের দৃষ্টি মূলক হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*