সংবাদ শিরোনামঃ

পানছড়িতে বর্ষায় বিপাকে আছে দুই গ্রামের শিক্ষার্থীরা

মাহবুব-ই-সামদানী… মাটিরাংগা প্রতিনিধি :

বর্ষা মৌসুমে বিদ্যালয়ে যাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ওমরপুর ও আলীনগর গ্রামের শিক্ষার্থীরা। যোগাযোগ ব্যবস্থার সংকট থাকায় বিদ্যালয়ে যেতে না পেরে অনেক শিক্ষার্থী জড়িয়ে পড়ছে গৃহস্থালির কাজে। ফলে এ দুই গ্রামের অনেক শিক্ষার্থী মাধ্যমিক স্তর থেকেই ঝরে পড়ছে। ইউনিয়নের মধ্যে অন্যান্য এলাকার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা কিছুটা ভাল থাকায় এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে গিয়ে শিক্ষার্থীরা লেখা পড়ার সুযোগ পাচ্ছে। অপরদিকে ওমর,পুর, ও আলীনগর গ্রামের, শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসা যাওয়ার চলা চলের ছোট ও ভাঙ্গা রাস্তার কারনে, বর্ষাকালে এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে পায়ে হেঁটে যাওয়ার সুযোগ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বর্ষার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ছাত্র ছাত্রীরা বিদ্যালয় বিমুখ হয়ে পড়ে। চলাচলের কষ্ট হলেও শিক্ষার প্রতি টান এবং অন্যকোন উপায় না থাকায় শিক্ষার্থীরা ও গ্রামের মানুষ ছোট পরিসরের যে রাস্তাটি বিদ্যমান সেখান দিয়েই কষ্ট করে, হলে ও, রাস্তাটি ব্যবহার করে আসছে। গ্রামের চলা চলের জন্য, ছোট্ট যে রাস্তাটি আছে বর্ষা মৌসুমে রাস্তার অবস্থা খুবই বিপদজনক। রাস্তার দুই পাশে রয়েছে ধানের জমি মাঝ পথে একটি ছড়া, নেই কোন কার্লভাট। যার ফলে শিক্ষার্থীরা পরিচ্ছন্ন কাপড় নিয়ে অধিকাংশ সময় স্কুলে যেতে সমস্যার সম্মূখীন হয়। যোগাযোগ ব্যবস্থার সমস্যার কারনে ছাত্র ছাত্রীদের অনুপস্থিতির, সংখ্যা বৃদ্ধির কারন হিসাবে উল্টছড়ি হাই স্কুলের প্রধান, শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বর্ষাকালে শুধু মাত্র যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে ওমরপুর ও আলীনগর গ্রামের শিক্ষার্থীর বিদ্যালয়ে উপস্থিতি কমে যায়। যে সকল ছাত্র ছাত্রীরা বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়, তাদের অধিকাংশের পোষাক কর্দমাক্ত ও ভেজা থাকতে দেখা যায়’। শিক্ষাঙ্গনে আসতে সমস্যার কারনে, উল্টাছড়ি বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্র আমির হামজা বলে, দু’দিন স্কুলে না গিয়ে জংগল, থেকে বাঁশ সংগ্রহ করে, চলা চলের রাস্তায়, অবস্থিত ছড়ার উপর একটি ভ্রাম্যমান, সেতু তৈরি করে, যা দিয়ে দুই গ্রামের শিক্ষার্থীদের অল্প সময়ের জন্য হলে ও বিদ্যালয়ে আসতে সাহায্য করবে। দুই গ্রামের বাসিন্দাদের দাবী শিক্ষার্থী ও জনগনের চলাচল উপযোগী রাস্তা ও সেতু নির্মান করলে পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীরা পড়া শোনার প্রতি আগ্রহ ফিরে পাবে।

About Jisan Ali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*