সংবাদ শিরোনামঃ

ঢেমশা উচ্চ বিদ্যালয়কে আরো সমৃদ্ধ করতে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ভুমিকা জরুরী …..

সাতকানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদ গঠনকল্পে মতবিনিময় সভা গতকাল ১১ ফেব্রুয়ারী চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে পরিষদের নব নির্বাচিত আহবায়ক শিক্ষাবিদ সুভাষ চন্দ্র দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রুপালী ব্যাংকের পরিচালক, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, ঢেমশা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবু সুফিয়ান। ঢেমশা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের সদস্য সচিব মোর্শেদ আলম চৌধুরীর পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র মা ও শিশু হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডাঃ এস.এম. মোস্তাক আহমদ, বন্দরের সাবেক কর্মকর্তা কাঞ্চন বিকাশ দাশ, শিক্ষাবিদ শশীভুষণ বড়ুয়া, ঢেমশা উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান প্রধান শিক্ষক দয়াল হরি মজুমদার, সাংস্কৃতিক সংগঠক দীপেন চৌধুরী, সাতকানিয়া সমিতি চট্টগ্রামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ জসিম উদ্দীন, এড. ফরিদ উদ্দীন, পীযুশ কান্তি দাশ, সিনিয়র শিক্ষক মোঃ ফরিদুল ইসলাম, মাষ্টার আবুল ফজল, আসাদ উজ জামান জনি, তন্ময় চক্রবর্তী ভাসু, অরুণ কান্তি মল্লিক, ইমাম হোসেন, দীপক মল্লিক, বিপ্লব পালিত, উদ্বয় শংকর, রমজান আলী, মহিরাজ বড়ুয়া, আবদুল গণি, অভিজিৎ চৌধুরী, মাসুদ পারভেজ, আরিফ চৌধুরী, মোঃ মিজান, আসিফ জামান, নাঈমুল আলম, ফাহাদ জামান, আজাদ বিন সাগর, জাহেদুল ইসলাম রিফন, হারুনুর রশিদ প্রমুখ। সভার শুরুতে কোরআন তেলওয়াত করেন মোঃ রমজান আলী, গীতা পাঠ করেন নারায়ন কান্তি দাশ, ত্রিপিটক পাঠ করেন জে.বি.এস. আনন্দবোধি ভিক্ষু। জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন পুর্বা চৌধুরী ও তার দল। সভায় সংগীত পরিবেশন করেন মিহির কর ও সাংবাদিক আহাসান হাবিব। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন বিদ্যালয়ের কৃতী শিক্ষার্থী এদেশমাতৃকার জন্য জীবন উৎসর্গকারী শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্বপন চৌধুরী ও দীলিপ চৌধুরীর প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি বলেন ঢেমশা উচ্চ বিদ্যালয় সাতকানিয়ার একটি প্রান্তিক জনগোষ্ঠীতে অবস্থিত হলেও বিদ্যালয়টি বর্তমানে শতবর্ষ পেরিয়ে ১১১ বছরে পা দিয়েছে। বিদ্যালয়ের হাজার হাজার শিক্ষার্থী দেশ বিদেশের নানা জায়গায় নানা পেশায় প্রতিষ্ঠিত। তিনি আরো বলেন বর্তমানে এই বিদ্যালয় বর্তমান সরকারের সার্বিক সহযেগিতায় একটি আধুনিক মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হতে চলেছে। বিদ্যালয়কে আরো সুদুরপ্রসার পরিকল্পনা এবং বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় আরো অগ্রসর প্রতিষ্ঠানে রুপান্তরিত করার আহবান জানান। বিদ্যালয়কে ভবিষ্যতে মহাবিদ্যালয়ে পরিণত করার জন্য বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আন্তরিকভাবে এগিয়ে আসতে হবে। বিশেষ করে বর্তমান শিক্ষার্থীদের মান উন্নয়নে ও গরীব অস্বচ্চল শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের অবদান রাখার আহবান জানান। সভা শেষে শিক্ষাবিদ সুভাষ চন্দ্র দাশকে আহবায়ক ও মোর্শেদ আলমকে সদস্য সচিব করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

About Asgor Ali Manik

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*